1. admin@netroalapon.com : admin :
  2. raihafntinv@gmail.com : Editor :
কেন জীবনে ৫ বার যেতে হবে নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে? - নেত্র-আলাপন
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৩৪ অপরাহ্ন

কেন জীবনে ৫ বার যেতে হবে নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে?

খালিয়াজুরী প্রতিনিধি
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৪৬৬ Time View

খালিয়াজুরী নেত্রকোণা জেলার একটি উপজেলা। তবে খালিয়াজুরী, বাংলাদেশ লিখতেই ভালো লাগে। খালিয়াজুরী উপজেলা বটে, তবে আপনি আর কোনো উপজেলার সাথে এটাকে মেলাতে পারবেন না। মোট এক বর্গ কিলোমিটারের ভেতর এই উপজেলা শহর শেষ হয়ে যাবে। ছোট্ট একটা বাজার আর উপজেলা প্রশাসন একসাথে আছে।

.

 

এইখানে মানে উপজেলায় একটা হাসপাতাল, একটা ডাকঘর, একটা সোনালী ব্যাংক, একটা কৃষি ব্যাংক, একটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটা উচ্চ বিদ্যালয়, একটা কলেজ  একটি গার্লস স্কুল , একটি হাফিজিয়া মাদ্রাসা ও হাজী লাল মিয়া তালুকদার কিন্ডার গার্টেন রয়েছে।
.
.
যাইহোক, খালিয়াজুরী হচ্ছে প্রত্যন্ত হাওড় অঞ্চল। এইখানে ছয় থেকে আট মাস মানুষজন পানিবন্দী থাকে। এপ্রিল-মে মাসে ভারতের পাহাড়ী ঢল থেকে পানি আসে। তারপর দ্বীপের মতো জেগে ওঠে হাটিগুলো। ছোট্ট ছোট্ট হাটি। যেমন ধরেন উদয়পুর নয়া হাটিতে ৩০ টা পরিবার। ঘরের সাথে ঘর। জড়াজড়ি করে জীবন কাটিয়ে দিচ্ছে এরা। উদয়পুর নয়াহাটি থেকে পুরাণহাটি কিংবা মধ্যহাটিতে যেতে এখন নৌকা লাগবে। নৌকা ছাড়া যোগাযোগের আর কোন বাহন এইখানে নেই।
.
.
খালিয়াজুরীর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করার জন্য আপনাকে সেখানে যেতে হবে পাঁচবার। একবার যাবেন শীতকালে জানুয়ারির শেষ দিক থেকে ফেব্রুয়ারি যে কোন সময়। তখন আপনি দেখবেন মাঠের পর মাঠ সবুজ হয়ে আছে ধান ক্ষেতে। তারপর যাবেন মার্চের শেষ দিকে তখন দেখবেন মাঠের পর মাঠ সোনা রঙ। পাকা ধান। মে-জুনের দিকে গিয়ে দেখবেন চারদিকে থৈ থৈ পানি। আপনার দেখে বিশ্বাস হবে না এইখানে কোনদিন ধানক্ষেত ছিলো। ঘোর বর্ষায় আপনাকে একবার যেতে হবে খালিয়াজুরী। আফাল দেখতে। ভয়াবহ ঢেউ এসে আছড়ে পড়ছে। সব ধরণের নৌ যোগাযোগা বন্ধ থাকে আফালের সময়। তারপরও আপনি যদি নৌকায় বসে সে ঢেউ উপভোগ না করেন তবে জীবনের বিশাল এক অভিজ্ঞতা বাকি থেকে যাবে। আর নৌকা থেকে দেখতে হবে হাওড়ের বৃষ্টি। ঢেউহীন হাওড়ের জলে যখন বৃষ্টি পড়ে মনে হবে অসংখ্য বকুল ফুটে উঠছে পানিতে।
.
.
চতুর্থবার আপনি খালিয়াজুরী যাবেন শেষ শরতের পূর্ণিমায়। জোছনা দেখতে। পূর্ণিমায় মাঝরাতে একটা নৌকা নিয়ে হাওড়ের মাঝখানে গিয়ে চুপচাপ সুন্দর উপভোগ করতে হয়। এই সুন্দর দেখে আপনার মরে যেতে ইচ্ছে হবে। এতো সুন্দরের ভেতর খুব অসহায় বোধ হবে আপনার।
.
.
পঞ্চমবার আপনি যাবেন বল্লভপুর বা আদমপুরের কীর্তন মেলায়। পানি নেমে গেছে। কৃষি শুরু হবে। তার আগে মঙ্গলের কামনা।
.
খালিয়াজুরী যাওয়ার সবচেয়ে সুবিধাজনক পথ হচ্ছে ঢাকা থেকে ট্রেনে করে মোহনগঞ্জ চলে যাওয়া। মোহনগঞ্জ থেকে সিএনজি অটোরিকশা করে বোয়ালি। আর বোয়ালি থেকে শুকনা মৌসুমে ভাড়ার মোটরসাইকেল আর বর্ষা মৌসুমে কলের নৌকা করে খালিয়াজুরী । রাতের ট্রেন কমলাপুর থেকে ছাড়ে রাত এগারোটা পঞ্চাশে। বুধবার ছাড়া। মোহনগঞ্জে পৌঁছে সকাল ছয়টায়। মোহনগঞ্জ থেকে বোয়ালি যাওয়ার পথটায় যেতে যেতে গ্রাম-বাংলার সকাল বেলার অপার সৌন্দর্য আপনি উপভোগ করবেন।
.
খালিয়াজুরীতে থাকার জন্য ডাকবাংলো রয়েছে। দেখাশোনা করেন কাশেম ।(তার ফোন নম্বর জানতে চাইলে ইনবক্স করুন) খাওয়া-দাওয়ার জন্য হোটেল রয়েছে। খালিয়াজুরীতে প্রচুর মাছ পাওয়া যায়। সকালে বা বিকালে মাছের আড়ৎ থেকে মাছ কিনতে পারবেন। মাছ কিনে যদি আলীনূর চাচাকে দেন তবে তিনিই আপনার খাবারের ব্যবস্থা করে দিবেন। খালিয়াজুরীতে আলীনূর দুইজন। চাচা একজনই । খুবি স্মার্ট এবং নরম মনের মানুষ। তার ছেলের নাম লাভলু। লাভলুর দোকানের দারুচিনি চা খেয়ে আসতে ভুলবেন না।
বলতে ভুলে গেছি উকিলমুন্সি কিন্তু খালিয়াজুরীর বোয়ালি নূরপুরের সন্তান।
“আমার গায়ে যত দুঃখ সয়, বন্ধুয়ারে কর তোমার মনে যাহা লয়” – এটা তার লেখা।
.
খালিয়াজুরী নেত্রকোনা সৌন্দর্য হাওর দ্বীপ যোগাযোগ নৌকা ভ্রমণ কীভাবে যাবেন কোথায় থাকবেন ট্রেন সিএনজি মোহনগঞ্জ আদমপুর কীর্তনমেলা সুন্দর পূর্ণিমা পানি ধান সবুজ আফাল পাঁচবার হাটি উপজেলা প্রশাসন ঘুরাফেরা প্রশাসন মাটি খালিয়াজুরী নেত্রকোনা সৌন্দর্য ভ্রমণ নেত্রকোনা খালিয়াজুরী সৌন্দর্য ভ্রমণ

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© All rights reserved © 2021 netroalapon.com
About Us |Privacy Policy | Sitemap  |Terms & Conditions
Theme Customized BY LatestNews